মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১৭ জুন ২০১৯

চলমান প্রকল্পসমূহ

চলমান প্রকল্প সমূহ

 

১)        ভূ-গর্ভস্থ সেচনালা নির্মাণের মাধ্যমে সেচ দক্ষতা বৃদ্ধি প্রকল্প (জুলাই'২০১৫-জুন'২০১৯),

            প্রাক্কলিত প্রকল্প ব্যয় ১৩৬১৬.২০ লক্ষ টাকা :

 

                প্রকল্পের উদ্দেশ্য:

ক) ভূ-গর্ভস্থ সেচনালা নির্মাণের মাধ্যমে সেচের পানির অপচয় হ্রাসকরণ;

খ) ফসলের বৈচিত্রকরণের মাধ্যমে সেচ এলাকা সম্প্রসারণ;

গ) ভূ-পরিস্থ সেচনালার পরিবর্তে ভূ-গর্ভস্থ সেচনালা নির্মাণের মাধ্যমে কৃষি জমির সাশ্রয়;

ঘ) সেচের পানি ব্যবস্থাপনা, ফসলের বৈচিত্রকরণ, সার ব্যবহার, প্রযুক্তিগত আবাদ ইত্যাদি বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান এবং

ঙ) প্রান্তিক কৃষক এবং দৈনিক শ্রমিকের অতিরিক্ত কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি।

(লক্ষ টাকায়)

কার্যক্রম

লক্ষ্যমাত্রা (ডিপিপি অনুযায়ী)

অগ্রগতি

(মে-২০১৯ পর্যন্ত)

২০১৮-২০১৯ বছরে

ক্রমোপুঞ্জিভুত অর্থিক (%)এবং ভৌত অগ্রগতি %

এডিপি বরাদ্দ

অর্থ ছাড়

ব্যয় (%) এবং ভৌত অগ্রগতি %

     

২২৪৮.০০

১৩৮৬.০০

১৩৮৬.০০

(৭৫.০৪%)

৯৯.৮৭%

১৩০৫০.৯৮

(৯৫.৮৫%)

৯৯.৯৮%

     
     

১। ভূ-গর্ভস্থ সেচনালা নির্মান (কিঃমিঃ)

১০৮০

১০৮০

     
     

 

 

২)         নওগাঁ জেলায় ভূ-পরিস্থ পানির প্রাপ্যতা বৃদ্ধির মাধ্যমে সেচ সুবিধা সম্প্রসারণ ও জলাবদ্ধতা  দূরীকরণ প্রকল্প (জুলাই'২০১৫-জুন'২০১৯),

            প্রাক্কলিত প্রকল্প ব্যয় ৭৯১২.৫০ লক্ষ টাকা :

                প্রকল্পের উদ্দেশ্য:

                ক) প্রকল্প এলাকার জলাবদ্ধতা দূরীকরণ ।

                খ) এক ফসলি জমিকে দুই ফসলি জমিতে রূপান্তরিত।

                গ) ৯২.২০ কিঃমিঃ খাল পুনঃ খনন, জলাশয় সৃষ্টি এবং ১৩টি ক্রসড্যাম নিরমান।

                ঘ) ভু-পরিস্থ পানি ব্যবহার করে ভূ-গভস্থ পানির উপর চাপ হ্রাস করা।

                ঙ) খালের পাড়ে ০.৩০ লক্ষ বৃক্ষ রোপন করে পরিবেশের ভারসাম্য আনয়নের সহায়তা করা।

                 চ) খাল পুনঃ খনন করে করমসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টির মাধ্যমে জনসাধারনের আত সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন করা।

(লক্ষ টাকায়)

কার্যক্রম

লক্ষ্যমাত্রা (ডিপিপি অনুযায়ী)

অগ্রগতি

(মে-২০১৯ পর্যন্ত)

২০১৮-২০১৯ বছরে

ক্রমোপুঞ্জিভুত অর্থিক (%)এবং ভৌত অগ্রগতি %

এডিপি বরাদ্দ

অর্থ ছাড়

ব্যয় (%) এবং ভৌত অগ্রগতি %

১) খাল পুনঃ খনন (কিঃমিঃ)

৯২.২০

৯২.২০

১৩১৩.০০

৯৭৩.৭৫

৯৭৩.৭৫

(৭৫.০৮%)

৯৯.৯০%

৭৫৭৩.৬৬

(৯৫.৭২%)

৯৯.৯৮%

২) জলাধার নিরমান (একর)

১৪

১৪

৩) ক্রসড্যাম নিরমান (টি)

১৩

১৩

     
     
     
     
     

 

 

৩)         শস্য উৎপাদনে মানসম্মত বীজ উৎপাদন, সরবরাহ ও কৃষক প্রশিক্ষণ প্রকল্প (জুলাই'২০১৫-জুন'২০২০),

            প্রাক্কলিত প্রকল্প ব্যয় ৯৮৬.২৩ লক্ষ টাকা, সংশোধিত ১০৪৬.২৩ লক্ষ টাকা :

                প্রকল্পের উদ্দেশ্য:

   ক) প্রকল্প এলাকায় মানসম্মত বীজ উৎপাদন ও সরবরাহ বৃদ্ধি।

                খ) প্রদর্শনী প্লট স্থাপনের মাধ্যমে প্রতিকুলতা সহিষ্ণু জাতের ধান ও গম বীজ উৎপাদনে কৃষকগণকে উদ্বুদ্ধকরণ এবং

                গ) মানসম্মত বীজ উৎপাদন এবং কম পানি গ্রহণকারী ফসলের চাষাবাদের উপর কৃষকগণকে প্রশিক্ষণ প্রদান।

(লক্ষ টাকায়)

কার্যক্রম

লক্ষ্যমাত্রা (ডিপিপি অনুযায়ী)

অগ্রগতি

(মে-২০১৯ পর্যন্ত)

২০১৮-২০১৯ বছরে

ক্রমোপুঞ্জিভুত অর্থিক (%) এবং ভৌত অগ্রগতি %

এডিপি বরাদ্দ

অর্থ ছাড়

ব্যয় (%) এবং ভৌত অগ্রগতি %

১) বীজ উৎপাদন (মেট্রিক টন)

৩০০০

২০১৫.০০

২৩৮.০০

১৭৮.৫০

১৭৮.৫০

(৭৫.০০%)

৮২.৯০%

৯৩৮.৩০

(৮৯.৬৮%)

৯২.১৯%

২) কৃষক প্রশিক্ষণ (জন)

৫০০০

৩৮৫০

৩) স্ট্যাফ প্রশিক্ষণ (জন)

৭০০

৫৫১

৪) দপ্তর, ল্যাবসহ বীজ গুদাম নির্মাণ (টি)

৪)         বরেন্দ্র এরাকায় পাতকুয়া খননের মাধ্যমে স্বল্প সেচের সবজি চাষ প্রকল্প (জুলাই'২০১৬-জুন'২০২০),

            প্রাক্কলিত প্রকল্প ব্যয় ৪৭৪৪.২৫ লক্ষ টাকাসংশোধিত ৫৩৪৮.৩৮ লক্ষ টাকা : :

                প্রকল্পের উদ্দেশ্য:

   ক) ৪৫০টি পাতকুয়া খনন করে প্রায় ১৩৫০ হেক্টর জমিতে বিভিন্ন ধরণের সবজি চাষ।

                খ) ৩৭৫০ জন গ্রামীণ জনসাধারনকে পানি সরবরাহ করা।

               গ) ভূ-গর্ভস্থ পানির উপর চাপ কমিয়ে ভূ-পরিস্থ পানির সর্বোচ্চ ব্যবহার।

                ঘ) প্রকল্প এলাকায় পরিবেশের ভারসাম্য উন্নয়ন করা।

(লক্ষ টাকায়)

কার্যক্রম

লক্ষ্যমাত্রা (ডিপিপি অনুযায়ী)

অগ্রগতি

(মে-২০১৯ পর্যন্ত)

২০১৮-২০১৯ বছরে

ক্রমোপুঞ্জিভুত অর্থিক (%) এবং ভৌত অগ্রগতি %

এডিপি বরাদ্দ

অর্থ ছাড়

ব্যয় (%) এবং ভৌত অগ্রগতি %

১) পাতকুয়া খনন  (টি)

৪২০

২৮৭ ১৫০০.০০ ১১২৫.০০

১১১০.৮৩

(৮৫.৪৫%)

৯১.৬২%

২৭৫৬.৯৮

(৫১.৫৫%)

৫৯.৬৪%

৫)        রাজশাহী জেলার বাঘা, চারঘাট ও পবা উপজেলায় জলাবদবধতা নিরসন এবং ভূ-পরিস্থ পানির প্রাপ্যতা বৃদ্ধির মাধ্যমে সেচ সুবিধা সম্প্রসারণ প্রকল্প (অক্টোবর'২০১৮-জুন'২০২০),

            প্রাক্কলিত প্রকল্প ব্যয় ২৫৬০.৫১ লক্ষ টাকা :

                প্রকল্পের উদ্দেশ্য:

   ক) প্রকল্প এলাকায় ১২৫০ হেক্টর জমির জলাবদ্ধতা নিরসন পূর্বক আবাদী জমি বৃদ্ধি এবং ৩৫০ হেক্টর সেচ সুবিধা সম্প্রসারণের ফলে ১৬০০ হেক্টর জমিতে ফসল উৎপাদনের মাধ্যমে ৮৮০০ মে. টন

        অতিরিক্ত ফসল উৎপাদন।

                খ) পুনঃ খননকৃত খালে ভূ-পরিস্থ পানির সংরক্ষণ, সেচ কাজে ব্যবহার ও ভূ-গর্ভস্থ পানির রিচার্জ বৃদ্ধিতে সহায়তা করা।

               গ) পাতকুয়া খননের মাধ্যমে কম পানি গ্রাহী ফসলের চাষ ও ভূ-গর্ভস্থ পানির অতিমাত্রা ব্যবহার সীমিতকরণ।

                ঘ) সেচ কাজে নবায়নযোগ্য সৌরশক্তি ব্যবহার করা।

(লক্ষ টাকায়)

কার্যক্রম

লক্ষ্যমাত্রা (ডিপিপি অনুযায়ী)

অগ্রগতি

(মে-২০১৯ পর্যন্ত)

২০১৮-২০১৯ বছরে

ক্রমোপুঞ্জিভুত অর্থিক (%) এবং ভৌত অগ্রগতি %

এডিপি বরাদ্দ

অর্থ ছাড়

ব্যয় (%) এবং ভৌত অগ্রগতি %

১) খাল পুনঃ খনন (কিঃমিঃ)

২৪

৭.২৫ ৪২৫.০০ ০০.০০

০০.০০

(০০.০০%)

৫৯.১৪%

০০.০০

(০০.০০%)

৯.৯২%


Share with :

Facebook Facebook