মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

চলমান প্রকল্পসমূহ

চলমান প্রকল্প সমূহ

 

১)         গভীর নলকূপ স্থাপন প্রকল্প, ২য় পর্যায় (প্রথম সংশোধিত) (জানুয়ারী/২০১০ হতে জুন/২০১৮)

            প্রাক্কলিত ব্যয় (আরডিপিপি অনুযায়ী) ২৭৪০৩.৯৬ লক্ষ টাকা (২য় সংশোধিত)

 

প্রকল্পের উদ্দেশ্য:

ক) পাবনা, সিরাজগঞ্জ, গাইবান্দ্ধা, রংপুর, কুড়িগ্রাম, নীলফামারী ও লালমনিরহাট জেলার ৬৫টি উপজেলায় সেচ সুবিধা সম্প্রসারনের লক্ষ্যে ১২৫০টি গভীর নলকূপ স্থাপন।

খ) ৪২৫০০ হেক্টর জমি নিয়ন্ত্রিত সেচ সুবিধার আওতায় আনা।

গ) অতিরিক্ত ২.১২৫ লক্ষ মেট্রিক টন অতিরিক্ত ফসল উৎপাদনের মাধ্যমে প্রকল্প এলাকার আর্থ-সামাজিক ব্যবস্থার উন্নয়ন করা।

ঘ) প্রকল্প এলাকার প্রান্তিক চাষী ও দিন মজুরদের অতিরিক্ত কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করে দারিদ্র বিমোচনে সহায়তা করা।

(লক্ষ টাকায়)

কার্যক্রম

লক্ষ্যমাত্রা (ডিপিপি অনুযায়ী)

অগ্রগতি

(জানুয়ারী-২০১৮ পর্যন্ত)

২০১৭-২০১৮ বছরে

ক্রমোপুঞ্জিভুত অর্থিক (%)এবং ভৌত অগ্রগতি %

আরএডিপি বরাদ্দ

অর্থ ছাড়

ব্যয় (%) এবং ভৌত অগ্রগতি %

১। নির্মাণ কাজ :

(ক) গভীর নলকূপ স্থাপন (টি)

(খ) ভূ-গর্ভস্থ সেচ নালা নির্মান (টি)

(গ) গভীর নলকূপ বিদ্যুতায়ন (টি)

(ঘ) খাস খাল খনন

(ঙ) ভূ-গর্ভস্থ সেচনালা বর্ধিতকরন (টি)

১১১৫

 

১১১৫

১১১৫

 

 

৪০

১১১৫

১১১৫

 

১১১৫

১১১৫

 

 

৩৮

১০৮০

২০৫৪.০০

৮৩২.৭৫

৮৩০.৭০

(৪০.৪৪%)

৭৪.৭৬%

২৬৫৪০.৫৩

(৯৬.৮৫%)

৯৮.৬২%

২। প্রশিক্ষণ

৩০০০

৩০০০

 

 

২.         কৃষিপণ্য বাজারজাতকরণে গ্রামীন যোগাযোগ উন্নয়ন প্রকল্প (অক্টোবর'২০১০-জুন'২০১৮) (২য় সংশোধিত),

            ডিপিডি মোতাবেক প্রাক্কলিত ব্যয় ৩৩৬৯৫.৬৯ লক্ষ টাকা :

 

প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য :

ক) রাজশাহী, চাপাই নবাবগঞ্জ, নওগাঁ, বগুড়া, পাবনা ও নাটোর জেলার ৪২ টি উপ-জেলায় প্রত্যন্ত অঞ্চলে গ্রামীন যোগাযোগ উন্নয়নে প্রয়েরজনীয় ব্রীজ-কালভার্ট সহ সংযোগ সড়ক নির্মান করা।

খ) প্রকল্প এলাকার গ্রামীন জনগোষ্ঠির কৃষিঁজ ও ব্যবসা-বানিজ্য উন্নয়নের স্বার্থে উৎপাদিত ফসলের সহজ বাজারজাত করণ সুবিধা বৃদ্ধির মাধ্যমে আর্থ সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন করা।

গ) মরূময়তা রোধকল্পে প্রস্ত্মাবিত সড়কের দু'ধারে ব্যাপক বনায়ন নিশ্চিত করা।কৃষিপণ্য বাজারজাতকরণ ও কৃষকের পণ্যের সঠিক মূল্য নিশ্চিত করা।

ঘ) প্রকল্পের কার্যক্রমে নির্মাণ ও রক্ষণাবেক্ষণ কাজে স্থানীয় জনগনের কর্মস্থানের সৃষ্টি করা।

(লক্ষ টাকায়)

কার্যক্রম

লক্ষ্যমাত্রা (ডিপিপি অনুযায়ী)

অগ্রগতি

(জানুয়ারী-২০১৮ পর্যন্ত)

২০১৭-২০১৮ বছরে

ক্রমোপুঞ্জিভুত অর্থিক (%)এবং ভৌত অগ্রগতি %

এডিপি বরাদ্দ

অর্থ ছাড়

ব্যয় (%) এবং ভৌত অগ্রগতি %

১। পাকাসড়ক নির্মাণ (কিঃমিঃ)

৪২০

৪১৩

১৫২১.০০

৭৬০.৫০

৭৫৭.৪৫

(৪৯.৮০%)

৬০.৩৬%

৩২৯১৯.৬৮

(৯৭.৭০%)

৯৮.৩৬%

২। সড়ক মেরামত (কিঃমিঃ)

৭৪৪

৭৪১

৩। ব্রিজ/কালভার্ট নির্মাণ (টি)

১০৮

১০৫

৪। বৃক্ষ রোপন (লক্ষ টি)

৩.৬৬

৩.৬৬

 

 

৩)         বৃষ্টির পানি সরক্ষণ ও সেচ প্রকল্প-২য় পর্যায় (মার্চ'২০১১-জুন'২০১৮) (২য় সংশোধিত);

            প্রাক্কলিত প্রকল্প ব্যয় ১৯৯৯৯.৫৭ লক্ষ টাকা :

 

প্রকল্পের উদ্দেশ্য:

ক) দেশের শুষ্কতম এলাকা হিসাবে চিহ্নিত বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের আওতাধীন এলাকার সরকারী খাস খতিয়ানভুক্ত খাল, পুকুর ও জলাশয় পুনঃ খননের মাধ্যমে উন্নয়ন, পানির ধারণক্ষমতা বৃদ্ধি, জলাধারগুলিতে বৃষ্টির পানি সংরক্ষণ ও সেচসহ বহুমুখী কাজে ব্যবহার করা।

খ) ৬০০ কিঃ মিঃ খাস মজা খাল-খাড়ী, ২০০ টি পুকুর/জলাশয় পুনঃ খনন, পুনঃ খননকৃত খাল সমূহে ১০০ টি ওয়াটার কন্ট্রোল ষ্ট্রাকচার, ৬টি দিঘী ও ১টি রাবার ড্যাম নির্মাণের মাধ্যমে বৃষ্টির পানি সংরক্ষণ ও সেচ কাজে ব্যবহার করে এলাকার ৩৮০০০ হেক্টর জমিতে সেচ সুবিধা সম্প্রসারণ করা।

গ) ১০০টি পাতকূয়া নির্মানের মাধ্যমে গ্রামীন জনসাধারনের খাবার পানিসহ সম্পূরক সেচের ব্যবস্থা করা।

ঘ) প্রকল্প এলাকার জলাধারগুলিতে বৃষ্টির পানি সংরক্ষণ, সেচ ব্যবস্থা সম্প্রসারণ, খাল ও পুকুর পাড়ে নিবিড় বনায়নের মাধ্যমে  তাপমাত্রা হ্রাসকরণ, বাতাসের আপেক্ষিক আদ্রতা বৃদ্ধির মাধ্যমে বৃষ্টিপাতের অনুকূল পরিবেশ  সৃষ্টি ও শুষ্ক বরেন্দ্র এলাকার মরুকরণ প্রক্রিয়া রোধসহ প্রাকৃতিক ভারসাম্য বজায় রাখার সহায়ক উপাদান  সৃষ্টি করা। এছাড়াও ভূ-পরিস্থ পানি সংরক্ষণের মাধ্যমে এলাকার ভূ-গর্ভস্থ পানি পুনর্ভরনের (Ground Water Recharge) সুযোগ সৃষ্টি করা।

ঙ) প্রকল্প চলাকালীন সময়ে এবং বাস্তবায়নের পরেও অতিরিক্ত কর্মসংস্থান করা।

 

(লক্ষ টাকায়)

কার্যক্রম

লক্ষ্যমাত্রা (ডিপিপি অনুযায়ী)

অগ্রগতি

(জানুয়ারী-২০১৮ পর্যন্ত)

২০১৭-২০১৮ বছরে

ক্রমোপুঞ্জিভুত অর্থিক (%)এবং ভৌত অগ্রগতি %

এডিপি বরাদ্দ

অর্থ ছাড়

ব্যয় (%) এবং ভৌত অগ্রগতি %

১। খাস খাল পূন:খনন (কি:মি:)

৬০০

৫৬২

১৯৫২.০০

৯৭৫.৫০

৯৫৫.৫০

(৪৮.৯৫%)

৫৯.০১%

১৯০০১.৬২

(৯৫.০১%)

৯৬.৪৩৮%

২। খাস পুকুর পূন:খনন (টি)

২০০

১৯১

৩। সাব-মার্জড ওয়ার নির্মান (টি)

৯৭

৯২

৪। দিঘী পূন:খনন (টি)

৫। পাতকূয়া খনন (টি)

১১০

১১০

৬। রিচার্জ ওয়েল নির্মান (টি)

৭। রাবার ড্যাম নির্মান (টি)

৮। বনায়ন (লক্ষ)

 

 

৪)        ভূ-গর্ভস্থ সেচনালা নির্মাণের মাধ্যমে সেচ দক্ষতা বৃদ্ধি প্রকল্প (জুলাই'২০১৫-জুন'২০১৯),

            প্রাক্কলিত প্রকল্প ব্যয় ১৩৬১৬.২০ লক্ষ টাকা :

 

                প্রকল্পের উদ্দেশ্য:

ক) ভূ-গর্ভস্থ সেচনালা নির্মাণের মাধ্যমে সেচের পানির অপচয় হ্রাসকরণ;

খ) ফসলের বৈচিত্রকরণের মাধ্যমে সেচ এলাকা সম্প্রসারণ;

গ) ভূ-পরিস্থ সেচনালার পরিবর্তে ভূ-গর্ভস্থ সেচনালা নির্মাণের মাধ্যমে কৃষি জমির সাশ্রয়;

ঘ) সেচের পানি ব্যবস্থাপনা, ফসলের বৈচিত্রকরণ, সার ব্যবহার, প্রযুক্তিগত আবাদ ইত্যাদি বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান এবং

ঙ) প্রান্তিক কৃষক এবং দৈনিক শ্রমিকের অতিরিক্ত কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি।

(লক্ষ টাকায়)

কার্যক্রম

লক্ষ্যমাত্রা (ডিপিপি অনুযায়ী)

অগ্রগতি

(জানুয়ারী-২০১৮ পর্যন্ত)

২০১৭-২০১৮ বছরে

ক্রমোপুঞ্জিভুত অর্থিক (%)এবং ভৌত অগ্রগতি %

এডিপি বরাদ্দ

অর্থ ছাড়

ব্যয় (%) এবং ভৌত অগ্রগতি %

     

৫০০০.০০

২৫০০.০০

১৪১৬.০৬

(২৮.৩২%)

২৯.৬৬%

৭৬৮৪.৯৯

(৫৬.৪৪%)

৫৬.৯৬%

     
     

১। ভূ-গর্ভস্থ সেচনালা নির্মান (কিঃমিঃ)

১০৮০

৬৩৫

     
     

 

৫)            রাজশাহী, নওগাঁ ও চাঁপাই নবাবগঞ্জ জেলায় পুরাতন গভীর নলকূপ পুনর্বাসন (ফেব্রুয়ারী'২০১৪-ডিসেম্বর'২০১৭),

            প্রাক্কলিত প্রকল্প ব্যয় ৭৭২৪.৯০ লক্ষ টাকা :

 

প্রকল্পের উদ্দেশ্য:

ক) পুরাতন গভীর নলকূপ পুনর্বাসনের মাধ্যমে সেচ কার্যক্রম অব্যহত রাখা।

খ) ১৮০০০ হেক্টর জমিতে সেচ ব্যবস্থা পরিচালনা নিশ্চিতকরণ।

গ) খাদ্য ঘাটতি পূরণের লক্ষ্যে প্রতি বছর ১.৫৩ লক্ষ মেট্রিকটন খাদ্যশষ্য উৎপাদন নিশ্চিতকরণ।

ঘ) নিযোমিত ভূ-গর্ভস্থ পানির স্তর পর্যবেক্ষন।

ঙ) কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টিকরণ।

 

(লক্ষ টাকায়)

কার্যক্রম

লক্ষ্যমাত্রা (ডিপিপি অনুযায়ী)

অগ্রগতি

(জানুয়ারী-২০১৮ পর্যন্ত)

২০১৭-২০১৮ বছরে

ক্রমোপুঞ্জিভুত অর্থিক (%)এবং ভৌত অগ্রগতি %

এডিপি বরাদ্দ

অর্থ ছাড়

ব্যয় (%) এবং ভৌত অগ্রগতি %

১। পুরাতন গনকূ পুনর্বাসন, কমিশনিং ও পাম্পঘর নির্মান (টি)

৬০০

৫৪২

৭৯১.০০

১৭২.৮৭

১৬২.৩০

(২০.৫২%)

৩৮.২৫%

৭০৯৫.৫০

(৯৫.৩৪%)

৯৫.৩৪%

২। ভূ-গর্ভস্থ সেচ নালা ও বৈদ্যুতিক লাইন নির্মান (টি)

৪০০

৩৫০

৬)         নওগাঁ জেলায় ভূ-পরিস্থ পানির প্রাপ্যতা বৃদ্ধির মাধ্যমে সেচ সুবিধা সম্প্রসারণ ও জলাবদ্ধতা  দূরীকরণ প্রকল্প (জুলাই'২০১৫-জুন'২০১৯),

            প্রাক্কলিত প্রকল্প ব্যয় ৭৯১২.৫০ লক্ষ টাকা :

                প্রকল্পের উদ্দেশ্য:

                ক) প্রকল্প এলাকার জলাবদ্ধতা দূরীকরণ ।

                খ) এক ফসলি জমিকে দুই ফসলি জমিতে রূপান্তরিত।

                গ) ৯২.২০ কিঃমিঃ খাল পুনঃ খনন, জলাশয় সৃষ্টি এবং ১৩টি ক্রসড্যাম নিরমান।

                ঘ) ভু-পরিস্থ পানি ব্যবহার করে ভূ-গভস্থ পানির উপর চাপ হ্রাস করা।

                ঙ) খালের পাড়ে ০.৩০ লক্ষ বৃক্ষ রোপন করে পরিবেশের ভারসাম্য আনয়নের সহায়তা করা।

                 চ) খাল পুনঃ খনন করে করমসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টির মাধ্যমে জনসাধারনের আত সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন করা।

(লক্ষ টাকায়)

কার্যক্রম

লক্ষ্যমাত্রা (ডিপিপি অনুযায়ী)

অগ্রগতি

(জানুয়ারী-২০১৮ পর্যন্ত)

২০১৭-২০১৮ বছরে

ক্রমোপুঞ্জিভুত অর্থিক (%)এবং ভৌত অগ্রগতি %

এডিপি বরাদ্দ

অর্থ ছাড়

ব্যয় (%) এবং ভৌত অগ্রগতি %

১) খাল পুনঃ খনন (কিঃমিঃ)

৯২.২০

৫৫.২৫

৩০০০.০০

৭৫০.০০

৬০৩.২৫

(২০.১১%)

২৭.১৭%

৪২০৩.১৬

(৫৩.১২%)

৫৯.৭২%

২) জলাধার নিরমান (একর)

১৪

১৪

৩) ক্রসড্যাম নিরমান (টি)

১৩

     
     
     
     
     

 

 

৭)         বরেন্দ্র এলাকায় খালে পানি সংরক্ষণের মাধ্যমে সেচ সম্প্রসারণ প্রকল্প (জানুয়ারী'২০১৫-জুন'২০১৮),(১ম সংশোধিত);

            প্রাক্কলিত প্রকল্প ব্যয় ১১৬১৩.০০ লক্ষ টাকা :

 

                প্রকল্পের উদ্দেশ্য:

ক) বরেন্দ্র এলাকায় খালে ভূ-পরিস্থ পানি সংরক্ষণ করে সেচ সুবিধা বর্ধিতকরণের মাধ্যমে ৩৭৮০ হেক্টর জমি সেচের আোতায় এনে বছরব্যাপী প্রায় ৩৭৮০০ মেট্রিকটন খাদ্যশস্য উৎপাদন।

                খ) জলবায়ু পরিবর্তনের সাথে খাপ খায়ানো এবং পরিবেশের ভারসাম্য উন্নয়নের নিমিত্তে ৮০০০০টি ফলদ, বনজ এবং ঔষধী বৃক্ষ রোপণ এবং

                গ) প্রকল্প এলাকায় শ্রমিক এবং প্রান্তিক চাষিদের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টির মাধ্যমে আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন।

 

(লক্ষ টাকায়)

কার্যক্রম

লক্ষ্যমাত্রা (ডিপিপি অনুযায়ী)

অগ্রগতি

(জানুয়ারী-২০১৮ পর্যন্ত)

২০১৭-২০১৮ বছরে

ক্রমোপুঞ্জিভুত অর্থিক (%) এবং ভৌত অগ্রগতি %

এডিপি বরাদ্দ

অর্থ ছাড়

ব্যয় (%) এবং ভৌত অগ্রগতি %

১) খাস খাল পুন:খনন (কি:মি:)

৩৮.৮৫

৩২.৫০

৩৭১৪.০০

১৮৫৭.০০

৯৭৫.৬৫

(২৬.২৭%)

৩০.৬৯%

৮৮৭৩.৯৯

(৭৬.৪১%)

৭৮.৩৩%

২) খাস পুকুর পুন:খনন (টি)

৩) ক্রসড্যাম নির্মাণ (টি)

১৬

১১

৪) পন্টুন স্থাপন (টি)

৫) ২৫০ মি:মি: ডায়া পাইপ লাইন নির্মাণ (মি:)

১৮১০০০

৬০০০০

৬) ৪০০ মি:মি: ডায়া পাইপ লাইন নির্মাণ (মি:)

৮৩৫০০

৮৩৫০০

 

৮)         শস্য উৎপাদনে মানসম্মত বীজ উৎপাদন, সরবরাহ ও কৃষক প্রশিক্ষণ প্রকল্প (জুলাই'২০১৫-জুন'২০২০),

            প্রাক্কলিত প্রকল্প ব্যয় ৯৮৬.২৩ লক্ষ টাকা :

                প্রকল্পের উদ্দেশ্য:

   ক) প্রকল্প এলাকায় মানসম্মত বীজ উৎপাদন ও সরবরাহ বৃদ্ধি।

                খ) প্রদর্শনী প্লট স্থাপনের মাধ্যমে প্রতিকুলতা সহিষ্ণু জাতের ধান ও গম বীজ উৎপাদনে কৃষকগণকে উদ্বুদ্ধকরণ এবং

                গ) মানসম্মত বীজ উৎপাদন এবং কম পানি গ্রহণকারী ফসলের চাষাবাদের উপর কৃষকগণকে প্রশিক্ষণ প্রদান।

(লক্ষ টাকায়)

কার্যক্রম

লক্ষ্যমাত্রা (ডিপিপি অনুযায়ী)

অগ্রগতি

(জানুয়ারী-২০১৮ পর্যন্ত)

২০১৭-২০১৮ বছরে

ক্রমোপুঞ্জিভুত অর্থিক (%) এবং ভৌত অগ্রগতি %

এডিপি বরাদ্দ

অর্থ ছাড়

ব্যয় (%) এবং ভৌত অগ্রগতি %

১) বীজ উৎপাদন (মেট্রিক টন)

৩০০০

১২১৫

৭৬.০০

৩৮.০০

১৮.০১

(২৩.৭০%)

২৩.৭০%

৭০২.১১

(৭১.১৯%)

৭২.১২%

২) কৃষক প্রশিক্ষণ (জন)

৫০০০

২২২৫

৩) স্ট্যাফ প্রশিক্ষণ (জন)

৭০০

৩৯৪

৪) দপ্তর, ল্যাবসহ বীজ গুদাম নির্মাণ (টি)

-

৯)         বরেন্দ্র এরাকায় পাতকুয়া খননের মাধ্যমে স্বল্প সেচের সবজি চাষ প্রকল্প (জুলাই'২০১৬-জুন'২০২০),

            প্রাক্কলিত প্রকল্প ব্যয় ৪৭৪৪.২৫ লক্ষ টাকা :

                প্রকল্পের উদ্দেশ্য:

   ক) ৪৫০টি পাতকুয়া খনন করে প্রায় ১৩৫০ হেক্টর জমিতে বিভিন্ন ধরণের সবজি চাষ।

                খ) ৩৭৫০ জন গ্রামীণ জনসাধারনকে পানি সরবরাহ করা।

               গ) ভূ-গর্ভস্থ পানির উপর চাপ কমিয়ে ভূ-পরিস্থ পানির সর্বোচ্চ ব্যবহার।

                ঘ) প্রকল্প এলাকায় পরিবেশের ভারসাম্য উন্নয়ন করা।

(লক্ষ টাকায়)

কার্যক্রম

লক্ষ্যমাত্রা (ডিপিপি অনুযায়ী)

অগ্রগতি

(জানুয়ারী-২০১৮ পর্যন্ত)

২০১৭-২০১৮ বছরে

ক্রমোপুঞ্জিভুত অর্থিক (%) এবং ভৌত অগ্রগতি %

এডিপি বরাদ্দ

অর্থ ছাড়

ব্যয় (%) এবং ভৌত অগ্রগতি %

১) পাতকুয়া খনন  (টি)

৪৫০

৯১ ১০০০.০০ ২৫০.০০

২১০.০৫

(২১.০১%)

২১.৫১%

৭১০.০৫

(১৪.৯৭%)

১৫.১৪%

 

১০)       সেচের গভীর নলকূপ হতে পাইপের মাধ্যমে খাবার পানি সরবরাহ প্রকল্প-৩য়  পর্যায় (জুলাই'২০১৩-জুন'২০১৮)  (১ম সংশোধিত);

            প্রাক্কলিত প্রকল্প ব্যয় ১১০৪৫.০০ লক্ষ টাকা :

                প্রকল্পের উদ্দেশ্য:

   ক) গ্রামাঞ্চলের প্রতিটি বাড়িতে সারা বছর সুপেয় পানি সরবরাহ করা।

                খ) গ্রামাঞ্চলে আর্সেনিকমুক্ত বিশুদ্ধ খাবার পানি সরবরাহ করা।

               গ) প্রকল্প এলাকায় প্রায় ৫.৫০ লক্ষ জনসাধারণকে বিশুদ্ধ খাবার পানি সরবরাহ করা।।

                ঘ) সুপেয় পানি ও আর্সেনিকমুক্ত পানি সরবরাহের ফলে রোগ জীবানু রোধ করা।

                                                                                                                                                              (লক্ষ টাকায়)

কার্যক্রম

লক্ষ্যমাত্রা (ডিপিপি অনুযায়ী)

অগ্রগতি

(জানুয়ারী-২০১৮ পর্যন্ত)

২০১৭-২০১৮ বছরে

ক্রমোপুঞ্জিভুত অর্থিক (%) এবং ভৌত অগ্রগতি %

এডিপি বরাদ্দ

অর্থ ছাড়

ব্যয় (%) এবং ভৌত অগ্রগতি %

১) পাইপ লাইনসহ খাবার পানি স্থাপনা নির্মাণ (টি)

৫৫০

৪৬৩ ৩৬৯৪.৫০ ৩০০.০০

৩০০.০০

(৮.১২%)

৩৫.৯১%

৭৬৫০.০০

(৬৯.২৬%)

৮৪.৮৫%


Share with :
Facebook Facebook